রোগী হার্নিয়ার, চিকিৎসক অপারেশন করলেন অ্যাপেন্ডিসাইটিসের

১৫

হার্নিয়া রোগীর অ্যাপেন্ডিসাইটিসের অপারেশন করেছেন চিকিৎসক। কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক ও নগরীর সিডিপ্যাথ অ্যান্ড হসপিটালের খণ্ডকালীন চিকিৎসক জুবায়ের আহমদ এ অপারেশন করেন।

এ ঘটনায় রোববার (০৯ ফেব্রুয়ারি) স্বাস্থ্যমন্ত্রী, সচিব, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের পরিচালক ও জেলা সিভিল সার্জনসহ বিভিন্ন দফতরে অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী রোগী। ভুক্তভোগী আনিছুর রহমান কুমিল্লার ধর্মসাগরের পশ্চিমপাড় এলাকার বাসিন্দা ও মৃত আমিন উল্লাহর ছেলে।

লিখিত অভিযোগে রোগী আনিছুর রহমান উল্লেখ করেছেন, দীর্ঘদিন ধরে হার্নিয়ার ব্যথার কারণে প্রথমে কুমিল্লা জেনারেল হাসপাতাল এবং পরে কুমেক হাসপাতালের একজন চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসা নেন। রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর হার্নিয়া চিকিৎসা দেন চিকিৎসক। পরবর্তীতে হার্নিয়ার ব্যথা তীব্র হলে কুমেকের সহকারী অধ্যাপক (সার্জারি) জুবায়ের আহমদের কাছে যান রোগী। তিনি পুনরায় রোগীর পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে নগরীর সিডিপ্যাথ অ্যান্ড হসপিটালে ভর্তি হয়ে অপারেশনের পরামর্শ দেন। গত ২৪ জানুয়ারি ওই হসপিটালে রোগীর অপারেশন করেন চিকিৎসক জুবায়ের আহমদ।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, কিছুদিন পর আবারও আগের মতো হার্নিয়ার ব্যথা হলে রোগী ওই চিকিৎসকের কাছে যান। তখন চিকিৎসক হার্নিয়ার পরিবর্তে অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশন করে ফেলেছেন বলে রোগীকে জানান।

আনিছুর রহমান বলেন, আমার সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্টে অ্যাপেন্ডিসাইটিস নরমাল উল্লেখ রয়েছে। কিন্তু চিকিৎসক জুবায়ের আহমদ ভুল করে হার্নিয়ার পরিবর্তে অ্যাপেন্ডিসাইটিস অপারেশন করেছেন। এজন্য হার্ট ও শ্বাসকষ্টসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে হুমকির মুখে পড়েছে আমার জীবন। এ ঘটনায় তদন্তপূর্বক চিকিৎসকের শাস্তি চাই আমি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক চিকিৎসক জুবায়ের আহমদ বলেন, রোগীর (আনিছুর রহমান) অ্যাপেন্ডিসাইটিসেরও সমস্যা ছিল। তাই অপারেশন করা হয়েছে। রোগীর সঙ্গে আসা একজন বলেছেন রোগীর অ্যাপেন্ডিসাইটিসের সমস্যা। তবে রোগীর হার্নিয়ার সমস্যাও আছে।

রোগীর সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্টে অ্যাপেন্ডিসাইটিস নরমাল উল্লেখ থাকলেও কেন অপারেশন করা হলো এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি এখন চট্টগ্রামে আছি। কুমিল্লা ফিরে কথা বলব বলে সংযোগ কেটে দেন।

এ বিষয়ে কুমেক হাসপাতালের পরিচালক চিকিৎসক মুজিবুর রহমান বলেন, অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করা হবে। সত্যতা পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো পড়ুন: